অভিভাবক,মেয়ে,বিয়ে

প্রশ্ন : আমার এক আত্মীয়া তাঁর প্রেমিককে বিয়ে করেন কাজি অফিসে। ছেলের মা এ বিয়ে সম্পর্কে জানতেন। সাক্ষী হিসেবে ছেলে আর মেয়ের কয়েকজন বন্ধু উপস্থিত ছিল। মেয়ের পরিবার এই বিয়ের ব্যাপারে জানত না। এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে, এই বিয়ে কি জায়েজ হয়েছে? মানে মেয়ের পরিবারের অসম্মতিতে আর অনুপস্থিতিতে কাজি অফিসে বিয়ে হলে সেটা কি শরিয়তসম্মত বিয়ে হয়?

উত্তর : জি না। মেয়ের অভিভাবককে বিয়ে সম্পর্কে জানতে হবে এবং জেনে তাঁদের সম্মতিক্রমে বিয়ে হতে হবে। ছেলের অভিভাবককে না জানিয়ে ছেলে বিয়ে করলে সেই বিয়ে হয়ে যাবে। কিন্তু মেয়ের অভিভাবকের ব্যাপারে বলা হয়েছে, ‘যদি কোনো মেয়ে নিজেকে নিজে বিয়ে দেয় অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া, সেটি হবে না। আবার কোনো বাবা যদি ইচ্ছা করে, জোর করে মেয়ের অনুমতি ছাড়া মেয়েকে বিয়ে দেয়, সেটিও হবে না। অভিভাবকের অনুমতি লাগবে, আবার মেয়েরও অনুমতি লাগবে।’

দুজনের অনুমতি সাপেক্ষেই বিয়ে করতে হবে। যদি মেয়ের পরিবারের কেউ অনুপস্থিত থাকে, শুধু মেয়েই উপস্থিত থাকে, তাহলে সেই বিয়ে জায়েজ হবে না।

এনটিভির আপনার জিজ্ঞাসার ১৯৩৯তম পর্বে অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া কোনো মেয়ে বিয়ে করতে পারবে কি না, সে সম্পর্কে ই-মেইলে জানতে চেয়েছেন শাঈনু। অনুলিখনে ছিলেন জহুরা সুলতানা।

প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মোহাম্মদ মতিউল ইসলাম।

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা ,চাকরি এবং বিজনেস  নিউজ ,টিপস ও তথ্য নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বাংলার জব  এবিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা ,চাকরি এবং বিজনেস  নিউজ ,টিপস ও তথ্য নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বাংলার জব  এ