আইটি ফার্ম

ইনফরমেশন টেকনোলজি আমাদের জীবনে এনেছে গতিময় ছন্দ। যোগাযোগে এনেছে অভূতপুর্ব সাফল্য। ব্যবসায়ের ক্ষেত্রকে করেছে আরও সমৃদ্ধ। আর সম্ভাবনাময় এ খাতে বিনিয়োগ করে আপনি হতে পারেন সফল উদ্যোক্তা।

স্বাগতম আপনাদের সকলকে। আইটি ফার্মের ব্যবসা স্থাপনের জন্য আপনাকে সবার আগে দক্ষ আইটি কর্মী নিযোগের চিন্তা মাথায় রাখতে হবে। কারন তারাই হচ্ছে আপনার সবচেয়ে বড় হাতিয়ার। তাদের মেধা ও বুদ্ধিকে কাজে লাগিয়ে আপনাকে এগিয়ে যেতে হবে। আপনি যদি আইটি বিষয়ে পড়াশুনা করে থাকেন তবে আপনার এ ব্যবসায়ে সফলতা পেতে সহজ হবে।আইটি ব্যবসা ভিন্ন ভিন্ন খাত ধরে করতে পারবেন। আপনি চাইলে ছোট থেকে বিস্তৃত পরিসরে এ ব্যবসা করতে পারবেন। এক লক্ষ টাকা ‍পুজিঁ থেকে শুরু করে কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে পারবেন এ খাতে।

ছোট করে যদি শুরু করতে চান সেক্ষেত্রে আপনি কম্পিউটার এর হার্ডওয়্যার মেরামত ও যন্ত্রাংশ বিক্রয় করতে পারেন। নেটওয়ার্কিং করার জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশও সাথে বিক্রয় করতে পারবেন। এখানে আপনি নষ্ট কম্পিউটার মেরামত থেকে শুরু করে মাউস, কিবোর্ড ,মনিটর, পিসি, সাউন্ড সিষ্টেম, নেটওয়াকিং কেবল, ওয়াইফাই, রাউডার সহ পেনড্রাইভ বিক্রয় করতে পারেন।

একটু বড় পরিসরে আসি এবার। আইটি ফার্ম করার জন্য আপনাকে যা করতে হবে সে সম্পর্কে জানানোর ক্ষুদ্র চেষ্টায় প্রথমত আপনাকে সু সজ্জিত অফিস নিতে হবে। কাজ করার জন্য হাই কনফিগারেশন কম্পিউটার নিতে হবে। সাথে প্রয়োজনীয় ব্যান্ডউইথ সংযোগ নিতে হবে। সফটওয়্যার তৈরীর জন্য দক্ষ, অভিজ্ঞ, সৃজনশীল সফটওয়্যার ইজ্ঞিনিয়ার নিয়োগ দিতে হবে।

আপনার প্রতিষঠান কি ধরনের সফটওয়্যার তৈরী ও বিক্রয় করবেন তার সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা একেঁ নিন। প্রচার পরিচালনা চালান দেশে ও বিদেশে। দেশের ভেতর কাজ পেতে যোগাযোগ করুন বানিজ্যিক ও সেবা খাত সমূহের প্রতিষঠানে।

বিদেশের বিভিন্ন ধরনের প্রতিষঠানের কাজ পেতে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যোগাযোগ রাখুন সর্তকতার সাথে। বায়ার আপনার কাজে সন্তুষ্টি প্রকাশ করলে আপনার কাজের অভাব হবে না বিদেশের বাজারে। বাংলাদেশ প্রতি বছর সফটওয়্যার রপ্তানি করে কোটি কোটি টাকা আয় করছে। আর এ খাতে আপনার বিনিয়োগ স্থাপন করে আপনিও নিতে পারেন সে সুবর্ন সুযোগ।

সফটওয়্যার তৈরীর পাশাপাশি আপনি সফটওয়্যার উন্নয়নের কাজও করবেন। আর এখান থেকেও আপনি আয় করতে পারবেন একটা বড় অঙ্কের অর্থ। আর ইন্টারনেট থেকেই আপনি সংগ্রহ করতে পারবেন এ ধরনের কাজ। পাশাপাশি যাদের কাছে সফটওয়্যার বিক্রয় করবেন তাদের কাছ থেকেই পুনরায় আপডেটের কাজ পাবেন। বড় বড় প্রতিষঠান সমূহের নেটওয়াকিং এর কাজ করেবেন সাথে।

ছোট আকারে একটি সফটওয়্যার ফার্ম করতে প্রায় আট থেকে দশ লক্ষ টাকা বিনিয়োগের প্রয়োজন হয়। এর বাইরে আপনি বিদেশ থেকে আইটি পন্যের আমদানি করে তা দেশের বাজারে বিক্রয়ের ব্যবসায়ও করতে পারেন। এক্ষেত্রে অবশ্য আরও বড় ও বেশী পুজিঁর বিনিয়োগ করতে হবে আপনাকে। আর আমদানিক্রত আইটি পন্যের ব্যবসায় করতে গেলে আপনাকে পন্য মানের সাথে কোন প্রকার সামজ্ঞস্য করা চলবে না। অবশ্যই ভাল মানের প্রন্য আমদানি করতে হবে।

মার্কেটিং এন্ড সেলস যেকোন প্রতিষ্ঠানের প্রাণ। সুতরাং এখানে আপনার কোন প্রকার ছাড় দেওয়ার সুযোগ নাই। পরিশ্রমী এবং দক্ষ লোক নিয়োগ দিতে ভুল করবেন না একটুও। মার্কেটিং প্লান সাজান এবং সে অনুযায়ী এগিয়ে যান কাংখিত লক্ষের দিকে।

মার্কেটিং এনড সেলস দক্ষতার সাথে পরিচালনা করে মান সম্মত সেবা প্রদানের নিশ্চয়তা প্রদান করতে পারলে আপনি খুব সহজেই আইটি ব্যবসায়ে সফল হতে পারবেন।

ধন্যবাদ সকলকে। শুভকামনা সকলের জন্য….
উৎসঃ উদ্যোক্তার খুঁজে

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা এবং চাকরি নিউজ ,টিপস ও তথ্য নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বাংলার জব  এ