মানুষের নৈতিক অবক্ষয়

যদিও অনেক ফ্যামিলিতে বাপ ছেলে মা মেয়ে মিলে একসাথে হিন্দি কিংবা হলিউডি মুভি দেখে যেখানে ক্ষণে ক্ষণে নায়ক নায়িকার জামা খুলে নিচ্ছে (অনেক ক্ষেত্রে নায়িকাও নায়িকার জামা খুলে নেয়, ‘মাই চয়েস’ কিনা), তবু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই যুগের ছেলেরা পিসি বা ল্যাপটপে বসেই একা একাই এইসব মুভির রেগুলার দর্শক।

টরেন্টের যুগে গিগার পর গিগা হলিউডি মুভি থেকে শুরু করে টেরার পর টেরা পর্ণও নামছে। গড়পড়তা প্রায় প্রতিদিনই ছেলেরা এখন পর্ণোগ্রাফিতে নায়িকাদের বস্ত্রহরণ দেখে যৌবনজ্বালা মিটিয়ে থাকেন।

এমন একটা তরুণ প্রজন্ম এখন তৈরি হয়েছে, যাদের মাঝে এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া; যার ল্যাপটপ বা মোবাইল ফোনে পর্ণ নেই; সেটা গরুর আকাশে ওড়ার মতই কঠিন একটা ব্যাপার। হ্যাঁ, আমি এখন হুজুরদের অন্তর্ভুক্ত হলেও লাইফের একটা বড় অংশ আমি এমন সব মানুষের সাথেই কাটিয়েছি, যারা আজকে নারীদের সম্মান নিয়ে বেশ কয়েক প্যারার পোস্ট লেখেন, অথচ তাদের ল্যাপটপে উপচে পড়ছে নগ্ন নারীর ওপর একাধিক পুরুষের অত্যাচারের ভিডিও।

আসলে রাতভর পর্ণ দেখে সকাল বেলা কোন নারীকে বাগে পেলে সম্মান দেয়াটা কষ্টকর হয়ে যায়। এটা সত্য কথা। তিতা সত্য যাকে বলে আর কি।

তো যা বলছিলাম, একটা ছেলে যখন নিয়মিত কোন না কোন নারীকে নগ্ন হতে দেখছে, তার জন্য ভিড়ের মাঝে কোন নারীকে নগ্ন করে ফেলা তেমন বিগ ডিল নয়। যত পুলিশ, যত সিসি ক্যামেরা, যত এন্টি কাঁটার ব্লেড মেয়েদের প্রতিরক্ষায় দেয়া হোক না কেন, মূল সমস্যা সমাধান করা কঠিন। আপনি ছেলেদের নিষেধ করবেন মেয়েদের গায়ে হাত না দিতে, আবার একই সাথে ছেলেরা পর্ণ, নগ্ন মুভি, অশ্লীল সোস্যাল (?) নাটক, সিনেমা দেখে দেখে হিংস্র জানোয়ার হয়ে উঠছে জেনেও ‘বয়সের দোষ’ ভেবে কোন ব্যবস্থা নেবেন না, এটা তো ইডিয়ট মার্কা বিষয় হয়ে গেলো।

আপনি ছেলে মেয়েদের এইসব অশ্লীল অনাচার থেকে দূরে রাখার যে আল্টিমেট ব্যবস্থা, সেই ইসলামের দাওয়াতকে জঙ্গিপনা, মধ্যযুগীয় মনে করেন, অথচ আপনাদের এই জাহিল সিস্টেমের ফ্রাঙ্কেন্সটাইনদের হাতে মেয়েরা লাঞ্ছিত হলে হায় হায় করেন।

ইসলাম এসেছে সমস্ত জাহিলিয়াতের মূলোৎপাটন করতে। নারীদের বেহায়ার মত চলাফেরা বন্ধ করতে, কুফরি শিরকি অনুষ্ঠান রুখে দিতে, যুবকদের শূকরছানার মত নগ্নতার রাস্তায় যেতে বাধা দিতে। এটাই কমপ্লিট কোড অফ লাইফ। এটাই মাল্টি এঙ্গেল একশান অফ এ ট্রু লাইফ সিস্টেম। এটাকে জঙ্গিবাদ বলুন, মৌলবাদ বলুন, মধ্যযুগীয় বলুন, এটাই আপনার ছেলের, আপনার মেয়ের সম্মান রক্ষার্থে আলটিমেট সলিউশান।

যতদিন এটাকে স্বীকার করতে গড়িমসি করবেন, ততদিন একের পর এক ফ্র্যাঙ্কান্সটাইন তৈরি করে যাবেন, একের পর নারীকে নগ্ন করে যাবেন। আর এক পা এক পা করে সমাজটাকে একটা ব্ল্যাক হোলের দিকে নিয়ে যাবেন।

হজম করতে কষ্ট হলেও, এটাই সত্য।

-Nazmus Sakib

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা ,চাকরি এবং বিজনেস  নিউজ ,টিপস ও তথ্য নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বাংলার জব  এ