সফল

ড্রপ আউট মানে হলো, ঝরে পড়া। যারা শিক্ষার গন্ডি শেষ করার আগেই ঝরে পড়েছিলেন কিন্তু আজ সফলদের কাতারে নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন তারা আমার আজকের লেখার আলোচ্য বিষয়। চলুন জেনে আসা যাক কয়েকজন  সফল ড্রপ আউটদের সম্পর্কেঃ

বিল গেটস
তিনি মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। তাঁকে বলা হয় হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচেয়ে সফল ড্রপ আউট। ১৯৭৩ সালে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন বিল। স্যাট পরীক্ষায় ১৬০০ নম্বরে ১৫৯০ পান তিনি। কিন্তু কম্পিউটার সফটওয়্যার তৈরির নেশায় তিনি ১৯৭৫ সালে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নাম কাটান। ড্রপ আউট হওয়ার ৩২ বছর পরে ২০০৭ সালে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় বিল গেটসকে অনারারি ডিগ্রি প্রদান করে। একই সমাবর্তন অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা ছিলেন বিল গেটস।

স্টিভ জবস
অ্যাপল–এর সহপ্রতিষ্ঠাতা প্রযুক্তিবিস্ময় স্টিভ জবস ছিলেন কলেজ ড্রপ আউট। হাইস্কুলের পড়াশোনা শেষে ১৯৭২ সালে রিড কলেজে ভর্তি হন স্টিভ। কিন্তু কলেজটি ব্যয়বহুল হওয়ার কারণে পড়ালেখা চালিয়ে নিতে পারেননি। ছয় মাসের মধ্যে নাম কাটা যায় তাঁর। নামা কাটার পরেও ১৮ মাস সেই কলেজের ডর্মের বন্ধুর রুমে থাকতেন। ডিগ্রি নেই তো কী হয়েছে, স্টিভ জবস ২০০৫ সালে স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তন বক্তা ছিলেন। স্টিভ জবসের জীবনাবসান হয় ৫ অক্টোবর ২০১১ সালে।

মার্ক জাকারবার্গ
মার্ক জাকারবার্গ হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে বসে বন্ধুদের নিয়ে তৈরি করেন ফেসবুক। ২০০৪ সালে ফেসবুক প্রতিষ্ঠার পরেই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ড্রপ আউট হন তিনি। ফেসবুক এখন বিশ্বজুড়ে সর্বাধিক ব্যবহৃত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। জাকারবার্গ ২০১১ সালে ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়াতে সমাবর্তন বক্তব্য দেন।

ডাস্টিন মস্কোভিৎজ
ডাস্টিন মস্কোভিৎজ ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতা
জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগের সাইট ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতাদের একজন ডাস্টিন মস্কোভিৎজ। হাইস্কুলের পড়াশোনা শেষে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিষয়ে পড়াশোনা শুরু করেন তিনি। কিন্তু ‘সঙ্গদোষে সর্বনাশ’ হয়ে মার্ক জাকারবার্গের সঙ্গে ফেসবুক নির্মাণে ঝাঁপিয়ে পড়েন তিনি। ফলাফলে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ড্রপআউট হন ডাস্টিন। আর ড্রপআউটের কারণেই পৃথিবী সর্বকনিষ্ঠ বিলিয়নিয়ারের তকমা তাঁর কাঁধে। ডাস্টিনের চেয়ে জাকারবার্গ আট দিনের ছোট বলে তকমাটি তাঁর দখলেই রয়েছে।

ব্র্যাড পিট
ব্র্যাড পিট অভিনেতা
যুক্তরাষ্ট্রের ছোট্ট এক শহর স্প্রিংফিল্ড। সেই শহরের হাইস্কুলের পরিচিত মুখ ছিল কিশোর পিট। গলফ থেকে শুরু করে স্কুলের টেনিস দলের সদস্য ছিল সে। খেলাধুলা আর পড়াশোনা দুটোই চলত সমান তালে। এমনকি স্কুলের গানের অনুষ্ঠানেও তার ঝলক দেখা মিলত। সেই কিশোর হাইস্কুলের পড়াশোনা শেষে ভর্তি হয় মিসৌরি বিশ্ববিদ্যালয়ে। সাংবাদিকতা ও বিজ্ঞাপন নিয়ে পড়াশোনা শুরু করে সে। পিট বুঝল পড়ালেখার দিকে তার একটু মন নেই, মন বসে না পড়ার টেবিলে। সব মনোযোগ তার সিনেমার প্রতি। মন যা বলল তা-ই শুনল পিট। পড়ালেখা ছেড়ে নাম লেখালেন অভিনয়ের ক্লাসে। মিসৌরি ছেড়ে লস অ্যাঞ্জেলেস ভাগলেন কাজের জন্য। বছর খানেকের মধ্যে টেলিভিশনে ডাক পড়ে আজকের হলিউড তারকা ব্র্যাড পিটের।

-স্বপ্ন নিয়ে, প্রথম আলো অবলম্বনে।

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা ,চাকরি এবং বিজনেস  নিউজ ,টিপস ও তথ্য নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বাংলার জব  এ ।