রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ,আইন বিভাগ

শহীদুল ইসলাম, রাজশাহী : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের ৫১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় বসার দাবিতে ২৪ ঘণ্টা পরও অনশন কর্মসূচি প্রত্যাহার করেননি। শিক্ষার্থীরা সেখানে ‘ভুল করলে শাস্তি দিতেই পারেন, তবে মৃত্যু না’ এ রকম প্লাকার্ড নিয়ে অনশন করছে। অনশনে অসুস্থ হয়ে দুই ছাত্রী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।তারা হলেন আফিফা অন্বেষা ও সুমাইয়া খন্দকার মম।

তারা দুজনেই আইন বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী।এদিকে পরীক্ষায় বসার দাবিতে বিভাগের সামনে অনশন কর্মসূচি পালনের মধ্যেই সোমবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে তাদের প্রথম বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা শুরু হয়েছে। আইন বিভাগের প্রথম বর্ষের ১৩০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ডিসকলেজিয়েট হওয়া ৫১ জন বাদে সবাই পরীক্ষায় বসেছেন।আইন বিভাগের সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক আবু নাসের মো. ওয়াহিদ বলেন, ‘৬০ ভাগের কম ক্লাস করলে তাকে ওই বর্ষেই থাকতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন একটি আইন রয়েছে। কিন্তু ওই শিক্ষার্থীদের অনেকেই বিভিন্ন কোর্সে মাত্র ২ ভাগ ক্লাস করেছেন। আমি তবুও বিভাগের একাডেমিক কমিটিতে বিষয়টি তুলেছিলাম।

কিন্তু সব শিক্ষক তাদেরকে পরীক্ষায় বসতে দিতে চায়নি। তাই রুটিন অনুযায়ী সোমবার সাড়ে ৯টা থেকে প্রথম বর্ষের পরীক্ষা শুরু হয়েছে।’প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, পরীক্ষায় বসার দাবিতে রোববার সকাল ১১টা থেকে আইন বিভাগের সভাপতির কক্ষের সামনে ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের ৫১ জন শিক্ষার্থী অনশন কর্মসূচি পালন করে আসছে। তারা রাতে সেখানেই ছিলেন। কর্মসূচি পালনের সময় রোববার রাতে সেখানে যান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক তারিকুল হাসানসহ অনেকেই।

কিন্তু শিক্ষার্থীরা তাদের ভুলের জন্য ক্ষমা চেয়ে পরীক্ষায় বসার দাবিতে অনশন কর্মসূচি পালন করছেন।এ সময় তাদের হাতে থাকা একটি প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, ‘আমরা সন্তান, আমারা ভুল করলে শাস্তি দিতেই পারেন, তবে মৃত্যু না’। অন্য একটিতে লেখা ছিল, ‘আমরা অনুতপ্ত, আমরা পরিবার হারাতে চাই না, আমরা একটি সুযোগ চাই’। পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ না দেওয়া পর্যন্ত তারা অবস্থান কর্মসূচি পালন করবেন বলেও জানা গেছে। এতে সোমবার সকালে দুই শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাদেরকে মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।

আইন অনুষদের ডিন সহযোগী অধ্যাপক বিশ্বজিৎ চন্দ্র বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী তারা পরীক্ষায় বসতে পারছেন না। তাই এতে অনুষদের কিছু করার নেই। আমরা দ্রুতই বিভাগে একটি অভিভাবক সম্মেলন করে শিক্ষার্থীদের বিষয়গুলো তাদেরকে জানাবো।’বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে ৭৫ শতাংশ ক্লাশে উপস্থিত থাকতে হয়। যদি বিশেষ কারণে তা সম্ভব না হলে, ৫০০ টাকা জরিমানা দিয়ে পরীক্ষায় বসার সুযোগ দেওয়া হয়।

তবে সেক্ষেত্রেও ৬০ শতাংশ উপস্থিতি থাকতে হয়।ক্লাসে ৬০ ভাগ উপস্থিতি না থাকার কারণে আইন বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের আর অন্তত ৪৫ জন শিক্ষার্থী দ্বিতীয় বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষায় বসতে পারবে না। আগামী ১৫ মার্চ তাদের পরীক্ষা হওয়ার কথা রয়েছে।