পোশাক,এসি

প্রচণ্ড গরমে পোশাকই এয়ার কন্ডিশনের মতো শরীর শীতল রাখতে সক্ষম হবে। মার্কিন গবেষকেরা পোশাকের জন্য এমন উপাদান তৈরি করেছেন। ওই উপাদান পোশাকের মধ্যে বুনে দিলে প্রচণ্ড গরমে পোশাকই এয়ার কন্ডিশনের মতো শরীর শীতল রাখতে সক্ষম হবে। মার্কিন গবেষকেরা পোশাকের জন্য এমন উপাদান তৈরি করেছেন। ওই উপাদান পোশাকের মধ্যে বুনে দিলে শরীর শীতল থাকবে। বাড়তি কোনো এয়ার কন্ডিশন প্রযুক্তির প্রয়োজন হবে না। গবেষকেরা প্লাস্টিক থেকে তৈরি এই উপাদানকে ‘সাশ্রয়ী’ টেক্সটাইল বলছেন।
‘সায়েন্স’ সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে গবেষণা সংক্রান্ত নিবন্ধ। গবেষকেরা বলছেন, উষ্ণ অঞ্চলে যারা বাস করেন তাঁদের জন্য এই পোশাক কাজে লাগানো যাবে।
স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যাটেরিয়ালস সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সহযোগী অধ্যাপক ইয়ি চুই বলেন, ‘যদি পুরো ভবনকে ঠান্ডা করার পরিবর্তে শুধু ব্যক্তিকে ঠান্ডা করা যায় তবে শক্তি সাশ্রয় হয়।’
গবেষকেরা শীতল পোশাক তৈরি করতে ন্যানোপ্রযুক্তি, ফোটোনিকস ও রসায়ন একসঙ্গে করেছেন। এই টেক্সটাইল আরও উন্নত করতে কাজ করছেন গবেষকেরা। তথ্যসূত্র: এএফপি।শরীর শীতল থাকবে। বাড়তি কোনো এয়ার কন্ডিশন প্রযুক্তির প্রয়োজন হবে না। গবেষকেরা প্লাস্টিক থেকে তৈরি এই উপাদানকে ‘সাশ্রয়ী’ টেক্সটাইল বলছেন।
‘সায়েন্স’ সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে গবেষণা সংক্রান্ত নিবন্ধ। গবেষকেরা বলছেন, উষ্ণ অঞ্চলে যারা বাস করেন তাঁদের জন্য এই পোশাক কাজে লাগানো যাবে।
স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যাটেরিয়ালস সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সহযোগী অধ্যাপক ইয়ি চুই বলেন, ‘যদি পুরো ভবনকে ঠান্ডা করার পরিবর্তে শুধু ব্যক্তিকে ঠান্ডা করা যায় তবে শক্তি সাশ্রয় হয়।’
গবেষকেরা শীতল পোশাক তৈরি করতে ন্যানোপ্রযুক্তি, ফোটোনিকস ও রসায়ন একসঙ্গে করেছেন। এই টেক্সটাইল আরও উন্নত করতে কাজ করছেন গবেষকেরা। তথ্যসূত্র: এএফপি।