ওয়েবসাইট
আধুনিক যুগে অনেকেই নিজের একটি ওয়েবসাইটের স্বপ্ন দেখেন। এই স্বপ্ন পূরণের ক্ষেত্রে একটি ভালো খবর হলো—কাজটি নিজেই করতে পারেন এবং এর জন্য প্রোগ্রামার কিংবা জিডাইনার হওয়ার দরকার নেই। দরকার নেই টাকা-পয়সারও। প্রয়োজন কেবল একটি কম্পিউটার আর ইন্টারনেট সংযোগ। বাকি বিষয়গুলোর জন্য আছেন বিশেষজ্ঞরা।
চারপাশ থেকে শিখুন
ওয়েবসাইট বানাতে অন্যদের প্রতিযোগী ধরে নিন। এবার তাঁদের সাইটগুলো পর্যবেক্ষণ করুন। ফিচার ও অপশনগুলো বোঝার চেষ্টা করুন। এতে নিজের সাইটের জন্য দারুণ সব আইডিয়া মাথায় চলে আসবে।
এবার সাইট বানান
এবার আপনার কাজ শুরুর পালা। এ কাজ করতে পেশাদারদের বেশ মোটা অঙ্কের অর্থ দিতে হয়। এ যুগে নিজের একটি ওয়েবসাইট বানানোর ক্ষেত্রে পয়সা নষ্টের কোনো মানে হয় না। এ কাজে ফ্রি টেমপ্লেট ব্যবহার করে নিজেই সাইটের কাঠামো দাঁড় করান। বিন্দুমাত্র কোড না লিখে পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট প্রস্তুতের জন্য অনেক ‘ডাই ওয়েবসাইট বিল্ডিং প্ল্যাটফর্ম’ রয়েছে। এদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্মগুলো বেছে নিতে পারেন। নিজের প্রয়োজনমাফিক টেমপ্লেট এখানে অনায়াসেই মিলবে। সেখানে পণ্য বিক্রির জন্য ই-কমার্স সাইট বা তথ্যসমৃদ্ধ সাইটের নকশাও পেয়ে যাবেন।
ওয়েবসাইটটি নিয়ে নিজেকেই প্রশ্ন করুন—
ক. ওয়েবসাইটটি বেশ স্পষ্ট হয়েছে?
খ. এটা কি চিত্তাকর্ষক?
গ. এতে কি মানুষের মানসিকতা সমৃদ্ধ হবে?
ঘ. সাইটটি কি ভিজিটরদের প্রশ্নের জবাব দিতে সক্ষম?
নিজের ব্লগ চালু করুন
সাইট বানানোর পর নিশ্চয়ই খুশি লাগবে। কিন্তু একটা অভাব থেকেই যাবে—আপনার সাইটে কোনো ব্লগ নেই। কিন্তু এই ব্লগের মাধ্যমে গোটা দুনিয়ার সঙ্গে দারুণ সব আইডিয়া শেয়ারের ব্যবস্থা করতে পারবেন।
স্মার্টফোনে চলে যান
ওয়েবসাইট কেবল কম্পিউটারে সীমাবদ্ধ থাকলে বিপুল ভিজিটর হারাবেন। কাজেই নিজের ওয়েবসাইটটি মোবাইলবান্ধব করুন।
–উইক্স অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার