ভিডিও শেয়ার

অনলাইনে টাকা আয় করা যায় এরকম কথা শুনেন নি এই ধরণের লোক বর্তমানে পাওয়া অনেকটা কষ্টকর হয়ে পড়েছে। আর এই ব্লগেতো পাওয়ার কথাই না। অনলাইনে আয়ের হাজার হাজার পদ্ধতির মধ্যে একটি পদ্ধতি আছে যা অনেকেরই জানা নাই। আর তা হল- YouTube ভিডিও এর মাধ্যমে আয়।

আপনারা হয়তো ভাবছেন আমি মসকরা করছি। কিন্তু এটা কোন মসকরা নয়। সত্যিই বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভিডিও শেয়ারিং সাইট YouTube থেকেও আপনি আয় করতে পারবেন অনেক বড় অংকের টাকা। নিচে আমি কয়েকজন ব্যক্তির নাম ও তাদের আয়ের পরিমান উল্লেখ করলাম-

1. Shane Dawson (431 million views and earn $315,000)
2. The Annoying Orange (349 mil views and earn $288,000)
3. Philip DeFranco (248 mil views and earn $181,000)
4. Ryan Higa (206 mil views and earn $151,000)
5. Fred (200 mil views and earn $146,000)

কিভাবে আয় করবেন?

YouTube থেকে আয়ের অনেক উপায় রয়েছে। নিম্নে কয়েকটা পদ্ধতি আলোচনা করা হল-

১. সুন্দর একটা YouTube Channel Name তৈরী করুন

প্রথমে YouTube এ গিয়ে একটা ফ্রি রেজিষ্ট্রেশন করুন। একাউন্ট তৈরী করার সময় যেকোন নাম না দিয়ে এমন নাম দেন যার সার্চ বেশী, যে নাম যে কেউ মনে রাখতে পারবে।

২. ভিডিও তৈরী-

ভিডিও তৈরীর জন্য আসলে দুইটি পথ অবলম্বন করা যেতে পারে। প্রথমটা হল- ভিডিও ক্যামেরা দিয়ে ভিডিও তৈরি করা। আপনার যদি কোন ক্যামেরা না থাকে তাহলে আপনি আপনার কম্পিউটার ব্যবহার করতে পারেন। তবে একটা কথা মনে রাখবেন, অবশ্যই ভাল সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে এবং আপনার কম্পিউটার দ্রুত থাকতে হবে। শুধু একটা বিষয়কে মাথায় রাখবেন, তাহল- আপনাকে অবশ্যই মজাদার ভিডিও তৈরী করতে হবে। মজাদার বলতে আমি কমেডি ফিল্ম তৈরী করার কথা বলছিনা। আমি বলছি, আপনার ভিডিও ভিউয়ারদের জন্য আনন্দদায়ক এবং তারা যেই ধরণের ভিডিওর জন্য সার্চ করছেন সেই ধরণের ভিডিও। উদাহরণস্বরুপ, আপনি একটা Channel তৈরী করলেন ফটোশপ টউটোরিয়ালের আর আপলোড করলেন বিভিন্ন কার্টুন, তাহলতো হল না। আপনি আপনার চ্যানেল যদি থাকে টিউটোরিয়ালের উপর তাহলে আপনি এখানে ভিডিও টিউটোরিয়ালই আপলোড করেন।

৩. আপনার ভিডিও YouTube এ আপলোড-

আপনি যখন আপনার তৈরীকৃত ভিডিও আপলোড দিবেন, তখন অবশ্যই আপনার কী-ওয়ার্ডগুলো দিয়ে দিবেন এবং সাথে সাথে আপনার ভিডিও এর ডেসক্রিপশনটাও দিয়ে দিবেন। আপনার ভিডিও এর সাথে আপনার ওয়েবসাইটের URL টাও দিয়ে দিবেন।

৪. আপনার আপলোডকৃত ভিডিও বিভিন্ন সোসিয়াল নেটওয়ার্কিং সাইটে শেয়ার করুন-

শুধু যে ভিডিও আপলোড করে দিলেন আর আপনি ট্রাফিক পেয়ে গেলেন, এটা ঠিক নয়। আপনি আপনার ভিডিওগুলো বিভিন্ন সোসিয়াল নেটওয়ার্কিং সাইট যেমন: ফেসবুক, টুইটার, গুগোল+ ইত্যাদি সমূহে শেয়ার করুন।

৫. আপনার ভিডিওয়ের জন্য ব্যাকলিংক তৈরী করুন-

একটা কথা ভাল করে মনে রাখবেন, YouTube ভিডিও পাবলিশিংও এক ধরনের ব্লগিং। তাই, আপনাকে ইউটউব, গুগোল এবং অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনে ভাল অবস্থানে আসার জন্য অবশ্যই কিছু ব্যাকলিংক তৈরী করতে হবে। শুধু আপনার টপিক রিলেটেড সাইটে লিংক তৈরি করুন।

৬. আপনার প্রতিযোগীদের বা আপনার মত কাজ করছেন এরকম লোকদের অনুসরণ করুন, আপনি যদি সফল হতে চান, তাহলে আপনার প্রতিযোগীদেরকে অনুসরণ করুন। দেখুন তারা কিভাবে সফল হচ্ছেন। তাদের সফলতার ইতিহাসটা পড়ুন।

৭.

(ক). কিভাবে YouTube থেকে টাকা আয় করবেন?

এতক্ষণ যা বললাম তাহল, কিভাবে একটা ভিডিও তৈরী করবেন বা কিভাবে আপনার চ্যানেলে ট্রাফিক বৃদ্ধি করবেন। এখন আমরা জানবো কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করবেন।

আপনি যদি উন্নতমানের জনপ্রিয় ভিডিও তৈরী করতে পারেন, তাহলে আপনি ইউটিউবের এ্যাডসেন্স পার্টনারশীপ থেকেই এটা অফার পেতে পারেন। তারপর আপনাকে YouTube Partnership Program (YPP) এর জন্য অফার করতে হবে। YouTube Partnership Program (YPP) পাতা ভিজিট করার জন্য এখানে ক্লিক করুন। যদি তারা আপনাকে রিজেক্ট করে তাহলে ‍পুনরায় এপ্লাই করার জন্য আপনাকে আরো ২ মাস অপেক্ষা করতে হবে। আর যদি আপনার চ্যানেলকে তারা একসেপ্ট করে তাহলে মিষ্টি ‍মুখ করেন। কারণ, তারা আপনাকে প্রতি মাসে $200 দিবে। কি মজা!

৮(খ). কিভাবে YouTube থেকে টাকা আয় করবেন?

# এফিলিয়েট পন্যের ভিডিও রিভিউ দিয়ে।

# এ্যাডভারটাইজিং স্লট ভিডিওয়ের মাঝে দিয়ে।

# আপনার ভিডিওয়ের ডিসক্রিপশনে এ্যাড স্লট দিয়ে।

# তাছাড়াও আপনি যদি ভাল কী-ওয়ার্ডের একটা ইউটিউব চ্যানেল তৈরী করতে পারেন, তাহলে আপনি ঐ চ্যানেল বিক্রি করেও টাকা আয় করতে পারেন।

আপনি যদি কোয়ালিটি ও জনপ্রিয় ভিডিও তৈরী করতে পারেন, তাহলে আপনিও আয় করতে পারেন হাজার হাজার ডলার। আজ এখানেই থাক। সবার জন্য শুভ কামনা রইল। আল্লাহ্‌ হাফেজ।

–  মো: আলাউর রহমান রিকন