স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর বেহেশত

ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ: এটা কারা আবিষ্কার করেছে, আমার জানা নেই। তবে মনে হচ্ছে যে, উক্তিটি মুসলিমদের আবিষ্কার নয়। অমুসলিমদের আবিষ্কার বলে আমার মনে হচ্ছে। তবে রাসুল (সা.)-এর হাদিসের কোথাও এই ধরনের বক্তব্য আসেনি। এটি একটি মিথ্যা প্রচারণা।

কেউ কেউ এটিকে হাদিস হিসেবেও চালিয়ে যান। কিন্তু হাদিসের সঙ্গে এর সামান্যতম কোনো সম্পর্ক নেই। কারণ এ ধরনের বক্তব্য রাসুল (সা.) কখনো দেননি।

অনেক বিষয় এ রকম আছে, সহিহ হাদিস আছে। আবার বচন, প্রবচন আছে, উক্তি আছে। ভেজালের পৃথিবীতে অনেক সময় ভেজাল হয়ে যায়। রাসুলের হাদিসের নামে অনেকসময় বচন, প্রবচনও ছড়িয়ে দেওয়া হয়। এগুলো খুব গর্হিত কাজ। এসব বিষয় থেকে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। আর, সচেতন থাকতে হলে যে হাদিস সাস্ত্র আছে সে সম্পর্কে আমাদের প্রাথমিক লেখাপড়াটা করা প্রয়োজন। তাহলে অনেক ভ্রষ্টতা থেকে আমরা বেঁচে যেতে পারব।

ভিডিও ভার্শন ও দেখতে পারেন —

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় এনটিভির জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দ‍র্শকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ।

আপনার জিজ্ঞাসার ১৯০৬তম পর্বে ‘স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর বেহেশত’ এ উক্তিটির কোনো গ্রহণযোগ্যতা আছে কি না, সে সম্পর্কে আজিমপুর, ঢাকা থেকে চিঠিতে জানতে চেয়েছেন মো.জায়িদুল হাসান। অনুলিখনে ছিলেন জহুরা সুলতানা।

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা ,চাকরি এবং বিজনেস  নিউজ ,টিপস ও তথ্য নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বাংলার জব  এ